জেনে নিন হোয়াটসঅ্যাপের ৫টি সুবিধা!

অনলাইন ডেস্ক:বন্ধুবান্ধবদের সঙ্গে আড্ডাই হোক বা অফিসের কাজ— হোয়াটসঅ্যাপ এখন অনেকের জীবনেই অপরিহার্য। তবে ঘন ঘন ব্যবহার করলেও এর কতগুলি সুবিধার কথা আমরা অনেকেই জানি না। জেনে নিন হোয়াটসঅ্যাপ কিছু সুবিধার কথা।

১. গ্রুপ চ্যাটে একসঙ্গে অনেক ম্যাসেজ পেতে থাকেন নিশ্চয়। সে ক্ষেত্রে আপনি দেরিতে উত্তর দিলে একগাদা ম্যাসেজের ভিড়ে হারিয়ে যেতে পারে আপনার কথা। নির্দিষ্ট কোনও ম্যাসেজের উত্তর দিতে হলে ওই লাইনটা প্রেস করে হোল্ড করুন। এর পর ফোনের (অ্যান্ড্রয়েড হলে) উপরে ব্যাকওয়ার্ড বাটন ক্লিক করুন। আইফোন হলে ট্যাপ বাটন ক্লিক করুন। এতে ওই নির্দিষ্ট লাইনেরই উত্তর পাবেন আপনার বন্ধু।

২. হোয়াটসঅ্যাপের সুরক্ষা বাড়াতে এবার জোড়া পরীক্ষার মধ্যে দিয়ে যেতে হবে। সম্প্রতি হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটে ‘টু-ফ্যাক্টর অথেনটিফিকেশন’ চালু করেছে। এটি চালু করার পর ছ’সংখ্যার পাসকোড সেট করতে হবে। এর ফলে আপনার মোবাইল চুরি হয়ে গেলেও সুরক্ষিত থাকবে আপনার হোয়টসঅ্যাপ। কারণ সিম বদল করেও চ্যাট রেকর্ড দেখা যাবে না। ফলে আপনার ই-মেইলে পাঠানো ওই পাসকোড না দিলে খুলবে না হোয়াটসঅ্যাপ।

৩. এক জনের সঙ্গে চ্যাট করলে সহজেই বোঝা যায় আপনার ম্যাসেজ কখন পড়া হয়েছে। তবে গ্রুপ চ্যাটে কে আপনার ম্যাসেজ পড়লেন তা দেখার জন্য ওই ম্যাসেজটা প্রেস করে ‘আই’ লেখাটি ক্লিক করুন। আইফোনে ওই ম্যাসেজটা হোল্ড করে বাঁ-দিকের টেনে নিয়ে আসুন। এবার মেনুতে দেখে নিন কে আপনার ম্যাসেজ পড়েছেন?

৪. হোয়াটসঅ্যাপে চ্যাটের বদলে অনেকেই ভয়েস ম্যাসেজ পাঠাতে পছন্দ করেন। তবে সে ম্যাসেজ শুনতে গেলেও তা স্পিকারে জোরে বেজে ওঠে। সকলের সামনে যদি ভয়েস ম্যাসেজ শুনতে না চান তবে খুব সহজ উপায় আছে। প্লে বাটনে ক্লিক করে মোবাইল ফোনটি কানে চেপে ধরুন। এটি সঙ্গে সঙ্গে স্পিকারফোন থেকে ইয়ারপিসে চলে যাবে। ফলে আপনার ম্যাসেজও গোপন থাকবে।

৫. হোয়াটসঅ্যাপে টেক্সট বোল্ড বা ইটালিকস ফন্ট-এ করতে কয়েকটি সহজ উপায় আছে। বোল্ড করতে কোনও শব্দের আগে ও পরে অ্যাস

Share Button